ঢাকা সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪

স্তন ক্যানসার চিকিৎসায় ব্যবহার হবে এআই

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক

প্রকাশিত: মার্চ ২৪, ২০২৪

স্তন ক্যানসার চিকিৎসায় ব্যবহার হবে এআই

বিশ্বজুড়ে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত নারীদের ব্যাপক ভোগান্তি সহ্য করতে হচ্ছে। প্রতিবছর প্রায় ২০ লাখ নারী এ ধরনের ক্যানসারে আক্রান্ত হন। এ অবস্থায় এই ক্যানসারের চিকিৎসা পরবর্তী জটিলতা নিরসনে সুখবর জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের চিকিৎসকেরা। তাঁদের দাবি, স্তন ক্যানসারের চিকিৎসা পরবর্তী বিভিন্ন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ঝুঁকির বিষয়টি আগে থেকেই অনুমান করতে পারবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই)।


ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সচেতনতা, প্রাথমিক পর্যায়ে শনাক্তকরণ এবং চিকিৎসার অনেক বিকল্প থাকায় সাম্প্রতিক সময়ে অনেক ক্ষেত্রেই স্তন ক্যানসার জয় সম্ভব। তবে অনেক রোগী চিকিৎসা-পরবর্তী সময়ে নানা ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভোগেন।


চিকিৎসক, বিজ্ঞানী এবং গবেষকেরা মিলে এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা মডেলটি তৈরি করেছেন। তাঁরা বলছেন, এর সাহায্যে একজন রোগীর অস্ত্রোপচার ও রেডিওথেরাপির পর সম্ভাব্য সমস্যার বিষয়ে ধারণা পাওয়া যাবে। বর্তমানে যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স এবং নেদারল্যান্ডসে পরীক্ষা চলছে প্রযুক্তিটির। এ প্রযুক্তির সাহায্যে রোগীদের আরও বেশি যত্ন নেওয়া সম্ভব হবে।


ইংল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব লিচেস্টারের সহযোগী অধ্যাপক ও স্তন ক্যানসারের বিশেষজ্ঞ সার্জন টিম র‍্যাটি বলেন, ‘স্তন ক্যানসারের চিকিৎসায় সার্জারি ও রেডিওথেরাপির পর দীর্ঘস্থায়ী প্রতিক্রিয়া হিসেবে রোগীর হাত ফুলে যাওয়ার ঝুঁকি সম্পর্কে ডাক্তার এবং রোগীদের জানাতে একটি এআই মডেল তৈরি করেছি আমরা। আশা করি, এটি রোগীর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কমাতে সহায়তা করবে।’ 

গবেষকেরা বলছেন, এই এআই মডেল স্তন ক্যানসার পরবর্তী চিকিৎসার পর ৩ বছর পর্যন্ত রোগীর লিম্ফোডেমা বা হাত-পা ফুলে যাওয়ার বিষয়টি আগেভাগে অনুমান করতে পারবে। এ ক্ষেত্রে মূলত এআই মডেলটি সেটিকে দেওয়া ৬ হাজার ৩৬১ জন রোগীর তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে ভবিষ্যদ্বাণী করবে।

এ বিষয়ে সুইজারল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব অ্যাপ্লাইড সায়েন্স অ্যান্ড আর্টসের সহযোগী অধ্যাপক ড. গুইদো বলোগনা বলেন, ‘রেডিওথেরাপি বা কেমোথেরাপি দেওয়া হয়েছে কি, হয়নি তার ওপর ভিত্তি করে মোট ৩২ জন রোগীর—যারা সবাই ভিন্ন ভিন্ন জটিলতায় ভুগেছেন—চিকিৎসা বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে আমাদের চূড়ান্ত সর্বোচ্চ কার্যকর মডেলটি ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারবে।’

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, তাদের এই এআই মডেলটি স্তন ক্যানসারের চিকিৎসা পরবর্তী সময়ে লিম্ফোডেমা আছে এমন রোগী শনাক্ত করতে ৮১ দশমিক ৬ শতাংশ ক্ষেত্রে সফল হয়েছেন এবং লিম্ফোডেমা হয়নি এমন ব্যক্তি শনাক্ত করতে ৭২ দশমিক ৯ শতাংশ ক্ষেত্রে সফল হয়েছেন। সব মিলিয়ে এই এআই মডেলের নির্ভুলতার হার ৭৩ দশমিক ৪ শতাংশ।

বার্তাজগৎ২৪

Link copied!