ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪

সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বদলির নীতিমালা প্রকাশ

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক

প্রকাশিত: এপ্রিল ৫, ২০২৪

সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বদলির নীতিমালা প্রকাশ

নিজ কর্মস্থল থেকে অন্যত্র বদলি হতে আগ্রহী সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য নীতিমালা প্রকাশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে এ নীতিমালা প্রকাশ করা হয়।

নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষকদের বদলি হবে শুধু অনলাইনে। প্রতিবছর অক্টোবর মাসে বদলি আবেদন নেয়া হবে। যদিও যৌক্তিক কারণ থাকলে সরাসরি আবেদন করা যাবে।

এ ছাড়া নতুন নিয়মে সমতলের শিক্ষকদের অন্তত এক বছর পাহাড়ি অঞ্চল, দুর্গম চর ও হাওড়াঞ্চলে চাকরি করতে হবে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিতকরণ ও প্রশাসনিক শৃঙ্খলা বজায় রাখার লক্ষ্যে সরকারি শিক্ষকদের বদলি নীতিমালা না থাকায় এবং বদলি ও পদায়নের ক্ষেত্রে বিদ্যমান পরিপত্র ও অফিস আদেশ যুগোপযোগী করার উদ্দেশে এ নীতিমালা প্রণয়ন করা হলো।

নীতিমালার আওতা নিয়ে বলা হয়েছে, শিক্ষার মাধ্যমিক স্তরের সরকারি শিক্ষকদের বদলি ও পদায়নের ক্ষেত্রে এ নীতিমালা প্রযোজ্য হবে। সরকার জনস্বার্থে যে কোনো সময় যে কোনো শিক্ষককে বদলি ও পদায়ন করতে পারবে।

বদলির সময়কাল প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, প্রতি শিক্ষাবর্ষে শুধু অক্টোবর মাসে আগ্রহী শিক্ষকরা বদলির আবেদন করতে পারবেন। এ সময়সীমা ছাড়া অন্য কোনো সময়ে বদলির জন্য আবেদন করা যাবে না। তবে অনিবার্য পরিস্থিতিতে শুধু সিনিয়র সচিব বা সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ বরাবর আবেদন করা যাবে।

প্রতি অক্টোবর মাসে শিক্ষকরা যুক্তিযুক্ত কারণে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে নিম্নলিখিত শর্তে সরাসরি (অনলাইনে) আবেদন করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আবেদনের দরকার নেই।

মহানগর ও জেলা সদরে কর্মরত শিক্ষকের চাকরি একই প্রতিষ্ঠানে টানা ছয় বছরের বেশি হলে তাকে নিজ জেলায় অথবা কর্মস্থলের পাশের জেলায় বদলি করা হবে।

বদলির ক্ষেত্রে আবেদনকারীর নিজ জেলা/পার্শ্ববর্তী জেলায় পদায়নে গুরুত্ব দেয়া, সহকারী শিক্ষকের শূন্যপদের বিপরীতে অন্য বিষয়ে শিক্ষক বদলি বা পদায়ন করা হবে না। আবেদনের শর্তে বলা হয়েছে, বর্তমান কর্মস্থলে চাকরিকাল তিন বছর পূর্ণ হতে হবে, বদলির জন্য উপযুক্ত কারণ থাকতে হবে।

আবেদন বিবেচনায় অনুসরণীয় বিষয় সম্পর্কে বলা হয়েছে, অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী বিষয়ভিত্তিক সহকারী শিক্ষকের শূন্যপদের বিপরীতে অন্য বিষয়ের শিক্ষক বদলি বা পদায়ন করা যাবে না।

সমতলের সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষককে পার্বত্য (রাঙামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি) অঞ্চলে এবং দুর্গম চর ও হাওড়াঞ্চলে বদলি করা হলে তাকে এক বছর সেখানে চাকরি করতে হবে। এরপর তিনি অন্য জেলায় বদলির আবেদন করতে পারবেন।
 

বার্তাজগৎ২৪

Link copied!