ঢাকা রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪

এমপি আনার হত্যা রহস্য, নজরদারিতে ৬ নায়িকা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২৪

এমপি আনার হত্যা রহস্য, নজরদারিতে ৬ নায়িকা

ক্ষমতাসীন দলের টানা তিনবারের এমপি আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যার ঘটনায় এখন নজরদারিতে রয়েছেন অন্তত হাফ ডজন চিত্রনায়িকা। খুব শিগগিরই তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা গেছে গোয়েন্দা সূত্রে।

আনার হত্যায় জড়িত থাকার অপরাধে ইতোমধ্যে শিলাস্তি রহমান নামের কথিত মডেল গোয়েন্দা জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রয়েছেন কারাগারে।

প্রশ্ন হলো এত নায়িকা কি করে কলকাতায়? তারা কি সেখানে সিনেমার কাজে যায়, নাকি কোনো শো করতে যায়। আসলে তেমন কিছু না। আনার হত্যার মাস্টার মাইন্ড আখতারুজ্জামান শাহীনের নিমন্ত্রণেই তারা গিয়েছিল কলকাতায়।

কলকাতার পুলিশের তদন্তের কারণে, দেশের গোয়েন্দারা জানতে পেরেছেন যে, বাংলাদেশের ছয়জন নায়িকা ও মডেলকে কলকাতার পঞ্চলা ও গৌরবতীর ফ্ল্যাটে নিয়ে গিয়েছিলেন শাহীন। যাদের মধ্যে আনার এক চিত্রনায়িকার সঙ্গে একান্তে সময়ও কাটিয়েছিলেন। ওই নায়িকা কলকাতার একাধিক সিনেমায় অভিনয় করে সুনামও কুড়িয়েছেন। তার বয়স ৩০ এর কোটায়। বাংলাদেশি ওই নায়িকা চলনে-বলনে বেশ স্মার্ট বলেই পরিচিত।

আনার হত্যার ঘটনায় এই ছয় মডেল ও নায়িকাকে খুব শিগগিরই জিজ্ঞাসাবাদ করতে গোয়েন্দা কার্যালয়ে ডাকা হতে পারে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সূত্র জানা গেছে।

আকার ইঙ্গিতে নায়িকাদের বর্ণনা দিলেও তদন্তের স্বার্থে এখনই তাদের নাম প্রকাশ করতে চায়নি গোয়েন্দা সূত্র। তবে এই খবরে সিনেমা না করেই বিত্তশালীদের ব্যক্তিগত পার্টিতে যাওয়া নায়িকাদের পিলে চমকে যাওয়ার দশা। ঢাকাই সিনেমার বাজার মন্দার কারণে উঠতি নায়িকারা খুব একটা সুবিধা করতে না পেরে ভালো মন্দের বিচার না করে বিত্তশালীদের পাশাপাশি অপরাধীদের ব্যক্তিগত জলসায় সময় কাটিয়ে আয় ভালোই করছে বলে জানা গেছে।

তবে এতকিছুর পরও ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যার মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো রহস্যই রয়ে গেল হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি। থ্রিলার সিনেমাকেও হার মানিয়েছেন এই হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি। এ ঘটনায় প্রধান কিলার আমানুল্লা তার ভাগিনা তানভীর এবং শিলাস্তি রহমানকে বাংলাদেশ থেকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। কলকাতা থেকে কসাই জিহাদ ও নেপালে আটক হয়েছে সিয়াম।

ঘটনার নেপথ্যে কলকাঠি নাড়ার দায়ে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ সম্পাদক গ্যাস বাবু এবং ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে তাদের নতুন করে ঝিনাইদহে আরও কিছু নেতা রয়েছে গোয়েন্দা নজরদারিতে।

তবে সঞ্জিবা গার্ডেনের সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার হওয়া মাংসের টুকরো এবং বাগজোলা খাল থেকে উদ্ধার হওয়া হাড়গোড় এমপি আনারের কি না তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বার্তাজগৎ২৪

Link copied!