ঢাকা রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪

৩৩ বছর বয়সেই ক্যারিয়ার শেষ স্প্যানিশ ফুটবলারের

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক

প্রকাশিত: জুলাই ৯, ২০২৪

৩৩ বছর বয়সেই ক্যারিয়ার শেষ স্প্যানিশ ফুটবলারের

চোটের সঙ্গে যুদ্ধটা থিয়াগো আলকানতারার দীর্ঘদিনের। লড়াই করতে থাকা আলকানতারা অবশেষে হাল ছেড়ে দিলেন। ফুটবল থেকেই অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন ৩৩ বছর বয়সী স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার।

২০২৩-২৪ মৌসুমে লিভারপুলের জার্সিতে মাত্র ১ ম্যাচ খেলার সৌভাগ্য হয়েছে আলকানতারার। চোটের সঙ্গে যুদ্ধ করতে করতে নতুন মৌসুম শুরুর আগে বুটজোড়া তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। নিজের অফিশিয়াল এক্স হ্যান্ডলে গত রাতে এক বিবৃতিতে লিখেছেন, ‘আমি যা পেয়েছি, তার প্রতিদান দিতে সব সময়ই আগ্রহী। যতটুকু সময় উপভোগ করেছি, তাতে অনেক কৃতজ্ঞ। ফুটবলকে ধন্যবাদ। যারা আমার পাশে থেকেছেন এবং ভালো ফুটবলারের পাশাপাশি ভালো মানুষ তৈরি করতে সাহায্য করেছেন, সবাইকে ধন্যবাদ। শিগগিরই আবার দেখা হবে থিয়াগো।’

২০২২-২৩ মৌসুমের শেষে পিঠের চোটে পড়ায় অস্ত্রোপচার করতে হয়েছিল আলকানতারাকে। তবে ২০২৪ এর ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনি ফিরতে পারেননি। আর্সেনালের বিপক্ষে ২০২৩-২৪ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে ৮৫ মিনিটের সময় নামেন বদলি হিসেবে। সেই ম্যাচ লিভারপুল হেরেছিল ৩-১ গোলে। ম্যাচটি ছিল লিভারপুলের জার্সিতে আলকানতারার ৯৮তম ম্যাচ। ২০২০ সালে বায়ার্ন মিউনিখ ছাড়ার পর চার বছরের চুক্তিতে লিভারপুলে এসেছিলেন তিনি। অল রেডদের জার্সিতে ৩ গোলের পাশাপাশি অ্যাসিস্ট করেন ৬ গোল।

বার্সেলোনার জার্সিতে ২০০৯ সালে পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ার শুরু করেন আলকানতারা। কাতালানদের হয়ে নিজের প্রথম মৌসুমেই (২০০৮-০৯) লা লিগা জয়ের স্বাদ পান তিনি। সব মিলে চারটি লা লিগা জেতেন স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার। ২০১০-১১ মৌসুমটা যে ছিল তাঁর ক্যারিয়ারের অন্যতম স্মরণীয় এক মৌসুম। লা লিগা, চ্যাম্পিয়নস লিগ, স্প্যানিশ সুপার কাপ, উয়েফা সুপার কাপ, ক্লাব বিশ্বকাপ—সবই তিনি জিতেছেন এই সময়ে।

আলকানতারা বার্সেলোনা ছেড়ে ২০১৩ সালে পাড়ি জমান বায়ার্ন মিউনিখে। বার্সার শিরোপাজয়ের রেশটা ধরে রেখেছেন বায়ার্নেও। সাতবার বুন্দেসলিগা ও একবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতেন জার্মান ক্লাবটির হয়ে। লিভারপুলে চার বছরের ক্যারিয়ারে জিতেছেন একটি করে এফএ কাপ ও কমিউনিটি শিল্ড। তবে অলরেডদের জার্সিতে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতা হয়নি। ২০২১-২২ চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে শিরোপা হাতছাড়া হয়েছিল লিভারপুলের। রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়ার অতিমানবীয় পারফরম্যানসে অলরেডরা সেদিন একের পর এক আক্রমণ করেও গোল করতে পারেননি।

বার্তাজগৎ২৪

Link copied!